টিকা পাচ্ছে পাবলিক-প্রাইভেটের পৌনে ৮ লাখ শিক্ষার্থী

শিক্ষার্থীদের করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন দিয়েই সশরীরে পাঠদান শুরু করা হবে বলে জানয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী দেশের সব পাবলিক-প্রাইভেট ইউনিভার্সিটির পৌনে ৮ লাখ শিক্ষার্থীকে টিকা দিতে তাদের তালিকা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে পাঠিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

ইউজিসির সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দেশে বর্তমানে পাবলিক ইউনিভার্সিটির সংখ্যা ৪৯টি। এর মধ্যে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনাকারী ৪৫টি ইউনিভার্সিটিতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা সাড়ে ৩ লাখ। আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে ১০৭টি। এগুলোতে শিক্ষার্থী রয়েছে ৪ লাখ ২৫ হাজার। এই শিক্ষার্থীদের তালিকা বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে সংগ্রহ করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট বিভাগে পাঠিয়েছে ইউজিসি।

ইউজিসি বলছে, এই তালিকা এখন টিকার রেজিষ্ট্রেশনের জন্য তৈরি সুরক্ষা সেবা অ্যাপে ইনপুট দেয়া হবে। শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় তথ্য ইনপুট দিতে অনেকদিন সময় লেগে যেতে পারে। তবে তথ্য ইনপুট হওয়ার পরপরই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের অনাবাসিক ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকাদান শুরু হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ইউজিসি সচিব অধ্যাপক ড. ফেরদৌস জামান বুধবার (৭ জুলাই) বিকেলে জানান, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী আমরা পর্যায়ক্রমে সব শিক্ষার্থীকে টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে।

তিনি বলেন, এই মুহূর্তে পাবলিক ইউনিভার্সিটির আবাসিকের এক লাখের বেশি শিক্ষার্থীকে টিকা দেয়া হচ্ছে। এদের টিকাদান শেষ হলে পাবলিক ইউনিভার্সিটির অনাবাসিক এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকাদান একসঙ্গে শুরু হবে। সবশেষ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও এর অধিভুক্ত কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া হবে।