The Rising Campus
News Media
শুক্রবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩

জাবির ৪ শিক্ষক বিদেশ গিয়ে ফেরেননি: অব্যাহতি প্রদান

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই বিদেশে অবস্থানের কারণে ৪ শিক্ষককে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট। উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৩০৯ তম সিন্ডিকেট সভায় এমন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এই চার শিক্ষক হলেন- ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাব্বির আহমেদ চৌধুরী, দর্শন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আরিফুর রহমান ও নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সায়েমা খাতুন

জানা গেছে, ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাব্বির আহমেদ চৌধুরী ব্যক্তিগত প্রয়োজনে যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের জন্য গত ২০১৭ সালের ২২ ডিসেম্বর থেকে ৬ জানুয়ারি ২০১৮ পর্যন্ত ছুটি নিলেও ৭ জানুয়ারি ২০১৮ তারিখ থেকে ২১ মে ২০১৮ পর্যন্ত অতিরিক্ত ১০৫ দিন বিদেশে অবস্থান করেন। পরে ২২ মে ২০১৮ তারিখে বিভাগে পুনরায় যোগদান করলেও ২০১৮ সালের জুন মাস থেকে আবারও বিভাগে অনুপস্থিত ছিলেন। এরপর গত ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২ তারিখে ই-মেইলে অবসরের আবেদনের বিষয়টি বিবেচনা করে ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখ থেকে তাঁকে চাকরি থেকে অবসর প্রদান করা হয়।

নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সায়েমা খাতুন গত ৯ আগস্ট ২০২০ তারিখ থেকে ১২ আগস্ট ২০২০ পর্যন্ত ব্যক্তিগত প্রয়োজনে ছুটি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র গমন করলেও পরে বেশ কয়েক দফা ছুটি বর্ধিত করেন। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৮ আগস্ট ২০২০ তারিখে বিভাগে যোগদানের জন্য একাধিকবার বলার পরেও যোগদান না করায় গত ১৩ জুলাই ২০২০ থেকে তাঁকে চাকরি থেকে অপসারণ করা হয়।

পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আরিফুর রহমান অনুমোদন ব্যতিত বিদেশ গমন করেন। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১২ আগস্ট ২০২১ থেকে তাঁকে অপসারণ করা হয়।

দর্শন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ থেকে বিভাগের একাডেমিক ও প্রশাসনিক দায়িত্ব পালন করছেন না। বিভাগীয় শিক্ষা কার্যক্রমে অনুপস্থিতির কারণে তাঁকে গত ৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ থেকে বরখাস্ত করা হয়।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম বলেন, নির্ধারিত ছুটি শেষে বিভাগে যোগদান না করায় আমরা তাদের বর্তমান ঠিকানা ও স্থায়ী ঠিকানায় চিঠি পাঠাই। চিঠির জবাব দেওয়ার জন্য এক মাস সময় দেওয়া হলেও তারা যোগাযোগ করেন নাই। এর প্রেক্ষিতে সিন্ডিকেট গঠিত স্ট্রাকচার্ড কমিটির সুপারিশে তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. ক্যাম্পাস
  3. জাবির ৪ শিক্ষক বিদেশ গিয়ে ফেরেননি: অব্যাহতি প্রদান

জাবির ৪ শিক্ষক বিদেশ গিয়ে ফেরেননি: অব্যাহতি প্রদান

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই বিদেশে অবস্থানের কারণে ৪ শিক্ষককে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট। উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৩০৯ তম সিন্ডিকেট সভায় এমন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এই চার শিক্ষক হলেন- ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাব্বির আহমেদ চৌধুরী, দর্শন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আরিফুর রহমান ও নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সায়েমা খাতুন

জানা গেছে, ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাব্বির আহমেদ চৌধুরী ব্যক্তিগত প্রয়োজনে যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের জন্য গত ২০১৭ সালের ২২ ডিসেম্বর থেকে ৬ জানুয়ারি ২০১৮ পর্যন্ত ছুটি নিলেও ৭ জানুয়ারি ২০১৮ তারিখ থেকে ২১ মে ২০১৮ পর্যন্ত অতিরিক্ত ১০৫ দিন বিদেশে অবস্থান করেন। পরে ২২ মে ২০১৮ তারিখে বিভাগে পুনরায় যোগদান করলেও ২০১৮ সালের জুন মাস থেকে আবারও বিভাগে অনুপস্থিত ছিলেন। এরপর গত ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২ তারিখে ই-মেইলে অবসরের আবেদনের বিষয়টি বিবেচনা করে ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখ থেকে তাঁকে চাকরি থেকে অবসর প্রদান করা হয়।

নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সায়েমা খাতুন গত ৯ আগস্ট ২০২০ তারিখ থেকে ১২ আগস্ট ২০২০ পর্যন্ত ব্যক্তিগত প্রয়োজনে ছুটি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র গমন করলেও পরে বেশ কয়েক দফা ছুটি বর্ধিত করেন। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৮ আগস্ট ২০২০ তারিখে বিভাগে যোগদানের জন্য একাধিকবার বলার পরেও যোগদান না করায় গত ১৩ জুলাই ২০২০ থেকে তাঁকে চাকরি থেকে অপসারণ করা হয়।

পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আরিফুর রহমান অনুমোদন ব্যতিত বিদেশ গমন করেন। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১২ আগস্ট ২০২১ থেকে তাঁকে অপসারণ করা হয়।

দর্শন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ থেকে বিভাগের একাডেমিক ও প্রশাসনিক দায়িত্ব পালন করছেন না। বিভাগীয় শিক্ষা কার্যক্রমে অনুপস্থিতির কারণে তাঁকে গত ৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ থেকে বরখাস্ত করা হয়।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম বলেন, নির্ধারিত ছুটি শেষে বিভাগে যোগদান না করায় আমরা তাদের বর্তমান ঠিকানা ও স্থায়ী ঠিকানায় চিঠি পাঠাই। চিঠির জবাব দেওয়ার জন্য এক মাস সময় দেওয়া হলেও তারা যোগাযোগ করেন নাই। এর প্রেক্ষিতে সিন্ডিকেট গঠিত স্ট্রাকচার্ড কমিটির সুপারিশে তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন