The Rising Campus
News Media
বৃহস্পতিবার, ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

জবিতে যিশু খ্রিষ্টের প্রাক-জন্মদিন উদযাপন

মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ, জবিঃ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) অধ্যয়নরত খ্রিস্টান শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে যিশু খ্রিস্টের জন্মদিন উপলক্ষে প্রাক-বড়দিন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) বিকেলে উপাচার্যের সম্মেলন কক্ষে এর আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এসময় আলোচনা সভা শেষে কেক কাটা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাসের সভাপতিত্বে ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জগেশ রায়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক।

এসময় উপাচার্য বলেন, বাঙ্গালির ঐতিহ্যের সাথে ধর্মীয় সংস্কৃতি মিশে আছে। কোনো ধর্মই মাদক নিতে বলে না, মিথ্যা বলা শেখায় না, কারোর কোনো ক্ষতি করতে বলে না। প্রত্যেকে প্রত্যেক ধর্মের বাণীগুলো যদি কেউ মেনে চলে তাহলে সে পথভ্রষ্ট হবে না।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে ধর্মের নামে হানাহানি চলে। বড় বড় রাষ্ট্রগুলোতে এখন দেখা যায় ধর্মীয় ছোটছোট বিষয় নিয়ে বিশ্বকে অস্থিতিশীল করে তোলে। আমাদের প্রত্যেকের সকল ধর্মকে শ্রদ্ধা করা উচিৎ।

এসময় উপাচার্য বলেন, নতুন ক্যাম্পাসের মাস্টারপ্লান হয়ে গেছে। সেখানে মসজিদ, মন্দির, গীর্জা সবই হবে। সেখানে সকল শিক্ষার্থী তাদের নিজ ধর্ম পালন করে সহাবস্থান তৈরি করবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. লুৎফর রহমান, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল, সহকারী প্রক্টর ও খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. ক্যাম্পাস
  3. জবিতে যিশু খ্রিষ্টের প্রাক-জন্মদিন উদযাপন

জবিতে যিশু খ্রিষ্টের প্রাক-জন্মদিন উদযাপন

মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ, জবিঃ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) অধ্যয়নরত খ্রিস্টান শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে যিশু খ্রিস্টের জন্মদিন উপলক্ষে প্রাক-বড়দিন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) বিকেলে উপাচার্যের সম্মেলন কক্ষে এর আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এসময় আলোচনা সভা শেষে কেক কাটা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাসের সভাপতিত্বে ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জগেশ রায়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক।

এসময় উপাচার্য বলেন, বাঙ্গালির ঐতিহ্যের সাথে ধর্মীয় সংস্কৃতি মিশে আছে। কোনো ধর্মই মাদক নিতে বলে না, মিথ্যা বলা শেখায় না, কারোর কোনো ক্ষতি করতে বলে না। প্রত্যেকে প্রত্যেক ধর্মের বাণীগুলো যদি কেউ মেনে চলে তাহলে সে পথভ্রষ্ট হবে না।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে ধর্মের নামে হানাহানি চলে। বড় বড় রাষ্ট্রগুলোতে এখন দেখা যায় ধর্মীয় ছোটছোট বিষয় নিয়ে বিশ্বকে অস্থিতিশীল করে তোলে। আমাদের প্রত্যেকের সকল ধর্মকে শ্রদ্ধা করা উচিৎ।

এসময় উপাচার্য বলেন, নতুন ক্যাম্পাসের মাস্টারপ্লান হয়ে গেছে। সেখানে মসজিদ, মন্দির, গীর্জা সবই হবে। সেখানে সকল শিক্ষার্থী তাদের নিজ ধর্ম পালন করে সহাবস্থান তৈরি করবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. লুৎফর রহমান, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল, সহকারী প্রক্টর ও খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন