জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে সেমিস্টার ফাইনাল নেওয়ার পরিকল্পনা, ফল এক

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে সেমিস্টার চূড়ান্ত পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে। অনলাইনে পরীক্ষা নিয়ে এক মাসের মধ্যেই ফল প্রকাশ সম্ভব হবে বলে মনে করছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। অনলাইন পরীক্ষা গ্রহণসংক্রান্ত একটি নীতিমালা খসড়া করা হয়েছে, যা ২৬ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল সভায় অনুমোদন করার উপস্থাপন করা হবে। আজ শনিবার অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণসংক্রান্ত গঠিত কমিটির আহ্বায়ক ও বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন অধ্যাপক মনিরুজ্জামান প্রথম আলোকে এসব তথ্য জানান।

অধ্যাপক মনিরুজ্জামান বলেন, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণের অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে একটি খসড়া নীতিমালা করা হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীদের প্রতি সেমিস্টারের চূড়ান্ত পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে। অনলাইনে পরীক্ষায় অংশ নিতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি নেওয়া হবে। যাতে সবাই পরীক্ষায় অংশ নিতে পাবে। সেমিস্টার শেষে শিক্ষার্থীরা অন্তত ১৫ দিন আগেই পরীক্ষা গ্রহণের তারিখ জানতে পারবে। তিনি বলেন, অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণের ফলে ফল প্রকাশেও আগের মতো আর বিলম্ব থাকবে না। শিক্ষকেরা চাইলে সাত দিনে খাতা দেখা সম্ভব। কারণ, পরীক্ষা শেষ হওয়ার সঙ্গে এক্সটার্নাল ও ইন্টারনাল একই সময়ে শিক্ষার্থীদের উত্তরপত্র দেখতে পারবে। এতে এক মাসের মধ্যেই সেমিস্টারের সব কোর্সের উত্তরপত্র দেখে চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা সম্ভব হবে।

অধ্যাপক মনিরুজ্জামান বলেন, চলমান করোনা সংকট থাকায় শিক্ষার্থীদের মিডটার্ম পরীক্ষা ইতিমধ্যে অনলাইনে নেওয়া সম্ভব হয়েছে। এ ছাড়া যেসব বিভাগের ইন্টার্ন থাকে, তাদের সেমিস্টার শুরুতেই ইন্টার্ন করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। এতে করে চূড়ান্ত পরীক্ষা শেষে হওয়ার ১৫ দিনের মধ্যেই শিক্ষার্থীরা ইন্টার্ন রিপোর্ট জমা দিতে পারবে।

ঈদের ছুটির আগে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণ বিষয়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিজ্ঞতা অনুসন্ধান এবং অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য ছয় সদস্যবিশিষ্ট এ টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন মনিরুজ্জামানকে আহ্বায়ক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের নেটওয়ার্কিং অ্যান্ড আইটি দপ্তরের পরিচালক উজ্জ্বল কুমারকে সদস্যসচিবের দায়িত্ব দেওয়া হয়। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন আইন অনুষদের ডিন সরকার আলী আক্কাস, ছাত্রকল্যাণ পরিচালক আবদুল্লাহ আল বাকী, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক মনিরা জাহান এবং কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক নাসির উদ্দিন।