চার বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে বিশেষ গুচ্ছের প্রস্তাব শিক্ষামন্ত্রীর

বিগত কয়েক বছর ধরেই গুচ্ছ পদ্ধতিতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি নেয়ার প্রস্তাব করে আসছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)। সেই প্রস্তাবে দেশের অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয় সাড়া দিলেও বরাবরই ‍নিজস্ব পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নিচ্ছে স্বায়ত্তশাসিত চারটি বিশ্ববিদ্যালয়। তবে এবারের পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রয়োজনে এই চারটি বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে বিশেষ গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার আহবান জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

গত রবিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ইউজিসি, চারটি স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয় এবং একটি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের মধ্যে অনলাইনে বৈঠক হয়। বৈঠকে এই প্রস্তাব দেন শিক্ষামন্ত্রী।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, ইতোমধ্যেই দেশের বড় চারটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা না নিয়ে নিজেরাই সরাসরি পরীক্ষা নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এ অবস্থায় সমন্বিত বা গুচ্ছ পদ্ধতিতে আসা সম্ভব না হলে অন্তত ১৯৭৩ সালের অধ্যাদেশে চলা চারটি বিশ্ববিদ্যালয় নিয়েই গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার প্রস্তাব দেন শিক্ষামন্ত্রী। আর বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়কে (বুয়েট) বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর নেতৃত্ব দিতে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক মুহাম্মদ আলমগীর বলেন, শিক্ষার্থীদের দুর্দশা লাঘবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও ইউজিসি সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে। ৩৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৩৪টি এখনো গুচ্ছ ভর্তির ব্যাপারে একমত।

প্রসঙ্গত, ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এবং বুয়েট সমিন্বত পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা না নিলে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষা নিতে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে পড়বে। এতে করোনার মধ্যেই শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের সারা দেশে যাতায়াত করতে হবে। একজন শিক্ষার্থীকে কমপক্ষে ১০টি জায়গায় ভর্তি পরীক্ষা দিতে হবে। এতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়বে। তাই যেকোনোভাবেই হোক সব বিশ্ববিদ্যালয়কে গুচ্ছ ভর্তিতে আনার চেষ্টা চলছে।