চাকরিপ্রার্থীদের বয়সে ছাড় দেওয়ার প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে

দেশে চলমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে প্রায় দুই বছর ধরে স্থবির রয়েছে চাকরির বাজার। বড় কোন নিয়োগ পর ীক্ষা না হওয়ায় চাকরির বয়স বাড়ানোর দাবি তুলেছেন চাকরিপ্রত্যাশীরা। তবে বয়স বাড়ানো নয়, করোনার কারণে সরকারি চাকরি প্রার্থীদের বয়রেস ২১ মাস ছাড় দেয়ার কথা জানান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো প্রস্তাব অনুযায়ী, ২০২০ সালের ২৫ মার্চ পর্যন্ত যাদের বয়স ৩০ বছর পূর্ণ হয়েছে তারা ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সরকারি চাকরির নিয়োগে যত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হবে সেখানে তাদের আবেদনের সুযোগ থাকবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, করোনার কারণে সরকারি চাকরি প্রার্থীদের বয়সে ২১ মাস ছাড় দেয়ার প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে। তিনি অনুমোদন দিলে এটি প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, করোনার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আমরা বিভিন্ন সেক্টরে প্রণোদনা দিয়েছি। তারই ধারাবাহিকতায় চাকরি প্রার্থীদের বয়সে ছাড় দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি প্রস্তাব পাঠিয়েছি। করোনার কারেণ সরকারি চাকরিপ্রার্থীরা যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেজন্য গত বছর বয়সে ছাড় দিয়েছিলাম। এবারও ছাড় দেয়ার প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিলে চাকরিপ্রার্থীরা বয়সে ২১ মাস ছাড় পাবে। এটি একটি বড় সহযোগিতা। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পাওয়ার পর সেপিট প্রজ্ঞাপন আকারে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে পাঠানো হবে। সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো চাকরির বিজ্ঞপিনে বয়স শিথিলের বিষয়টি উল্লেখ করে দেবেন।