ঘড়ির মাধ্যমে টাকা লেনদেন

করোনা পরিস্থিতিতে খুচরা কেনাকাটা সুরক্ষিত এবং নিরাপদ করতে হাতঘড়ির মাধ্যমে অনলাইনে টাকা পরিশোধের সুযোগ পাবেন গ্রাহকরা। স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার (এসবিআই) গ্রাহকরা এ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানা গেছে।

বিশ্বখ্যাত ঘড়ির ব্যান্ড টাইটান কোম্পানি লিমিটেড তৈরি পুরুষদের জন্য তিনটি ও মহিলাদের জন্য দু’টি মডেলের ঘড়িতে এমন সুবিধা দিবে ব্যাংকটি। যা ভারতের ইতিহাসে এই প্রথম কোন ব্যাংক এমন উদ্যোগ নিল।

জানা গেছে, এই ঘড়ি পরা থাকলে সংশ্লিষ্ট গ্রাহকদের ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করতে হবে না। পণ্য বা পরিসেবার মূল্য মোবাইল ফোনের মাধ্যমে দেওয়ার মতোই ঘড়ি থেকেও পাঠিয়ে দেওয়া যাবে বিক্রেতার অ্যাকাউন্টে। ঘড়ির স্ট্র্যাপে থাকবে ‘নিয়ার ফিল্ড কমিউনিকেশন’ (এনএফসি) চিপ। যেখানে যেখানে ‘কনট্যাক্টলেস পেমেন্ট মেশিন’ আছে, সেখানেই এটি ব্যবহার করা যাবে। ২ হাজার টাকা পর্যন্ত ব্যয়ের পিন-ও লাগবে না। তার উপরের অঙ্কের ক্ষেত্রে পিন ব্যবহার করতে হবে।

পুরুষদের তিনটি মডেলের ঘড়িটির সবচেয়ে সস্তাটির দাম ২,৯৯৫ টাকা। বাকি দু’টির দাম যথাক্রমে ৩,৯৯৫ এবং ৫,৯৯৫ টাকা। মহিলাদের জন্য দু’টি ঘড়ির দাম ৩,৮৯৫ এবং ৪৩৯৫ টাকা। টাইটানের ওয়েবসাইট থেকে কেনা যাবে চামড়ার স্ট্র্যাপের ঘড়িগুলি।

প্রস্তুতকারক সংস্থার দাবি, ব্যাংকিং সুবিধা দেওয়ার পাশাপাশি ক্রেতাদের খুশি করবে ঘড়িগুলির ক্লাসিক ডিজাইনও।

ভারতের অ্যাপ প্রস্তুতকারী একটি সংস্থার কর্ণধার সম্রাট মুখোপাধ্যায় বলেন, যে প্রযুক্তি ব্যবহার করে ঘড়ির মাধ্যমে পেমেন্ট করা যাবে, সেটা নতুন কিছু নয়। ইতোমধ্যেই সেটা চালু আছে। মোবাইল থেকেও সেটা করা যায়। কিন্তু নতুন প্রযুক্তি সব সময়েই স্বাগত। ভারতে কোনও ব্যাংক এর আগে গ্রাহকদের এই সুবিধা দেয়নি। দেশের বৃহত্তম ব্যাংক এটা শুরু করায় অন্যান্য ব্যাংকও আগামী দিনে আগ্রহী হবে।