খুলে দেয়া হলো ইরানে সব স্কুল, সাত মাস পর ক্লাসে শিক্ষার্থীরা

চলমান মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসের কোনো প্রতিষেধক বা টিকা আবিষ্কার না হলেও এ নিয়ে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে বিশ্বের একাধিক প্রতিষ্ঠানগুলো। এমন পরিস্থিতিতে অন্যসব দেশের মত বন্ধ ছিল ইরানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো।

তবে এবার করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই সব স্কুল খুলে দিয়েছে দেশটি। দীর্ঘ সাত মাস পর গত শনিবার স্কুলগুলো খুলে দেওয়া হয়। এর আগে দেশটিতে দেড় কোটি শিক্ষার্থী স্কুলে যায়। তবে শনিবার স্কুলে ৫০ হাজার শিক্ষার্থী ক্লাসে উপস্থিত ছিলেন।

দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেওয়া ভাষণে প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছেন, চলতি বছর আমাদের শিক্ষার্থীদের কাঁধে বিপুল দায়ের বোঝা চাপিয়েছি। সমাজের জন্য শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সমান গুরুত্বপূর্ণ। তবে শিক্ষার্থীদের জোর করে স্কুলে না পাঠাতে অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ইরানি সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, স্কুলের পাশাপাশি কলেজগুলোও খুলে দেওয়া হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন চিকিৎসকেরা।

দেশটির মেডিকেল কাউন্সিলের প্রধান ডা. মোহাম্মদ রেজা জাফরঘান্দি শিক্ষামন্ত্রীর কাছে লেখা এক খোলা চিঠিতে বলেছেন, স্কুল খুলে দেওয়ার এই আকস্মিক সিদ্ধান্ত দেশের চিকিৎসাকর্মীদের ওপর বোঝা বাড়াবে। যখন মহামারি আসে তখন স্কুলগুলো আগে বন্ধ করতে হয় এবং শেষে খুলতে হয়।