কাঠগড়ায় বরখাস্ত ওসি প্রদীপের ফোনালাপ, ৩ পুলিশ প্রত্যাহার

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের সময় আদালতের কাঠগড়ায় মুঠোফোনে কথা বলছিলেন টেকনাফ থানার বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ। এ নিয়ে একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এতে তোলপাড় শুরু হয়।

এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার কারণে পুলিশের এক কর্মকর্তাসহ তিন সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। আজ বুধবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন কক্সবাজারের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. হাসানুজ্জামান।

হাসানুজ্জামান বলেন, এসটিআই শাহাব উদ্দিনসহ তিন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গত সোমবার কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে সিনহা হত্যা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। এ সময় কাঠগড়ায় ওসি প্রদীপসহ ১৫ আসামি হাজির ছিলেন। এদিন সকালে জেলা কারাগার থেকে কড়া পুলিশ পাহারায় তাঁদের আদালতে হাজির করা হয়।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে ওসি প্রদীপকে কালো রঙের গেঞ্জি পরা দেখা যায়। তাঁকে সোমবার কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির করার সময় ওই পোশাকই পরা ছিলেন।

ধারণা করা হচ্ছে, আদালত চলাকালীন এক ফাঁকে প্রদীপ মুঠোফোনে কথা বলেন। কাঠগড়ায় বসে অন্য আসামিদের আড়ালে তিনি কথা বলছিলেন। ছবির সঙ্গে গতকাল সোমবার তাঁর পরনের কাপড় ও তাঁর শরীরের মিল রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, আদালতের এক পুলিশ সদস্য ওসি প্রদীপকে কথা বলার জন্য মুঠোফোনটি সরবরাহ করেছেন। দীর্ঘ সময় তিনি ফোনে কথা বলেছেন।