কর্মদিবসে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা, শিক্ষার্থীদের সময় সচেতন হওয়ার পরামর্শ

আগামী রবিবার (১৭ অক্টোবর) শুরু হচ্ছে গুচ্ছভুক্ত ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা। ওইদিন জ্ঞান বিভাগের ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা হবে। এরপর ২৪ অক্টোবর (রবিবার) মানবিক বিভাগের ‘বি’ ইউনিটে এবং ১ নভেম্বর (সোমবার) বাণিজ্য বিভাগের ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এসব ভর্তি পরীক্ষাগুলো কর্মদিবসে পড়ায় শিক্ষার্থীদের সময় বিষয়ে অধিক সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন আয়োজকরা। তবে পরীক্ষার সময় পরীক্ষাকেন্দ্রের আশপাশের যানজট নিয়ন্ত্রণে স্থানীয় ট্রাফিক বিভাগের সঙ্গে সমন্বয় করবে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়া বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। তাছাড়া করোনা সংক্রমণ রোধে প্রতিটি কেন্দ্রে মানা হবে স্বাস্থ্যবিধি।

এ বিষয়ে ভর্তি পরীক্ষার কোর কমিটির আহ্বায়ক এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ফরিদ উদ্দীন আহমেদ বলেন, একটি সুষ্ঠু, সুন্দর পরীক্ষা নেওয়ার জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। পরীক্ষাগুলো যেহেতু কর্মদিবসে পড়েছে, তাই শিক্ষার্থীদের সময় বিষয়ে অধিক সচেতন হতে হবে। পরীক্ষাকেন্দ্রে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই পৌঁছানোর চেষ্টা করতে হবে। ভর্তি নির্দেশনায় আমরা এক ঘণ্টা আগে পরীক্ষাকেন্দ্রে উপস্থিত হওয়ার জন্য বলেছি।

তিনি বলেন, পরীক্ষা আরম্ভ হওয়ার পরে কোনো পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষাকক্ষে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। আমরা চেষ্টা করব, যতটা সম্ভব যানজট কম রাখার ব্যবস্থা করতে। এজন্য ট্রাফিক বিভাগের সঙ্গেও আমরা যোগাযোগ করব।

উপাচার্য আরও বলেন, গুচ্ছের পরীক্ষাকেন্দ্রগুলোর অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে একটি অভিজ্ঞতা হয়েছে। এছাড়া আমাদের পরীক্ষার জন্য সম্পূর্ণ সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

গুচ্ছের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো— জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।