করোনা নিয়ে নতুন তথ্য দিল মার্কিন সংস্থা

বাতাসের মাধ্যমে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়ায় বলে আগেই প্রমাণ করেছিল যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানভিত্তিক পত্রিকা ‘ল্যানসেট’। এবার এ বিষয়ে আরও একটি নতুন তথ্য দিল যুক্তরাষ্ট্রের ‘সেন্টার্স ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন’।

রোববার (০৯ মে) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের একটি প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সংস্থাটি এক গবেষণার মাধ্যমে জানিয়েছে যে, ৬ ফুট দুরত্বে থাকলেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

এর আগে ‘ল্যানসেট’-এর গবেষণায় জানা যায়, করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির মুখ থেকে বের হওয়া লালা বা ‘ড্রপলেটস’ বাতাসে কিছুক্ষণ ভেসে থাকতে পারে। শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে সেটি সুস্থ ব্যক্তির শরীরে প্রবেশ করে সংক্রমিত করে।

আর এ কারণেই করোনাভাইরাসের শুরু থেকে কারও সঙ্গে কথা বলার সময় অন্তত ৬ ফুটের দূরত্ব বজায় রাখতে বলা হয়েছিল।

এতদিন এই ধারণা করা হয়েছিল যে, ৬ ফুটের বেশি দূরত্বে করোনা সংক্রমণ ছড়াতে পারে না। এবার সেই ধারণাকে মিথ্যা প্রমাণ করে মার্কিন সংস্থা বলছে, ৬ ফুটের বেশি দূরত্বে থেকেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন সুস্থ ব্যক্তি।

সংস্থাটির দাবি, কোনো বদ্ধ ঘরে সংক্রমিত ব্যক্তি যদি অন্ততপক্ষে ১৫ মিনিট কিংবা তার বেশি সময় ধরে থাকেন, তবে সে ক্ষেত্রে তার মুখ থেকে ছিটকে আসা লালাবিন্দু বা ‘ড্রপলেট’ থেকে ৬ ফুটের বেশি দূরত্বে দাঁড়ানো ব্যক্তিও আক্রান্ত হতে পারেন।

এছাড়া আরও দাবি করে সংস্থাটি বলছে, করোনা সংক্রমিত ব্যক্তি চলে যাওয়ার পর যদি অন্য কেউ ওই ঘরে ঢোকেন, তারও সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।