করোনা ঝুঁকির মধ্যে ভিড়, ১৪ দিন পর পরিণতি

ঈদকে কেন্দ্র করে ঘরমুখো মানুষের স্বাস্থ্যবিধি না মানার বিষয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। তিনি বলেছেন, যা ঘটছে, তার ফলাফল আগামী ১৪ দিন পরই পাওয়া যাবে। নিজেদের ঝুঁকি নিয়ে যারা ভিড়ে গেছেন, তারা যেন পরিণতির জন্য সরকারকে কোনোভাবে দায়ী না করেন।

শনিবার (০৮ মে) সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ সতর্কবার্তা দেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, পরিস্থিতি বুঝেই নিষেধাজ্ঞাসহ কঠোর বিধিনিষেধ দিয়েছে সরকার। সবাই নিয়ম মানার কথা দিয়েও কথা রাখছে না। এত দেখেও শিখছে না মানুষ। বিষয়টি খুবই হতাশার।

মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সরকারের কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হওয়ার পর থেকে রাজনৈতিক ও স্বেচ্ছাসেবী নানা সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রমজীবী মানুষের পক্ষে দাঁড়িয়ে দোকান- গণপরিবহন খুলে দেওয়ার দাবি জানানো হয়। তারা সরকারকে কথাও দেন- যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার। কিন্তু খুলে দেওয়ার পরে আর কোনো স্বাস্থ্যবিধি মানতে দেখা যায়নি।

প্রতিদিন মার্কেটে ভিড়, ফুটপাতে গা ঘেঁষাঘেষি করে কেনাকাটা করার চিত্র, গাদাগাদি করে মার্কহীন অবস্থায় ফেরি পার হয়ে গ্রামের বাড়ি যাওয়ার চিত্র গণমাধ্যমে প্রকাশ হচ্ছে। সেইসব ছবি দেখে হতাশাব্যক্ত করেন ফরহাদ হোসেন।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, নিজেদের ভালো আমরা কেউ বুঝতে চাইলাম না। একটু দূরত্ব রেখে দাঁড়ানো আর শতভাগ ডাবল মাস্ক ব্যবহার করলেই সব স্বাভাবিক করে দেওয়া যেত। কিন্তু যা কিছুই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, মানুষ কোনোটিই মানেনি।