করোনা কতো হিসেব নিকেশ পাল্টে দিল

করোনা কতো হিসেব নিকেশ পাল্টে দিল! চেনা পরিচিত চিত্র একেবারে অচেনা। ব্যাট-প্যাড গুছিয়ে রেখে কতোগুলো দিন অলস সময় পার করলেন ক্রিকেটাররা। আবারো যখন মাঠে ফিরছেন একেবারে নতুন অভিজ্ঞতাই হচ্ছে সবার।

ঈদের বিরতি শেষে আবারো শুরু হয়েছে ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত ঐচ্ছিক অনুশীলন। দ্বিতীয় দফায় আজ ৫ ভেন্যুতে অনুশীলন করেছেন ২৩ ক্রিকেটার। ঢাকায় নতুন যোগ দিয়েছেন মুমিনুল, মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির, তাইজুল ও সাদমান। স্বাস্থ্যবিধি মেনে নতুন নিয়মের বেড়াজালে বন্দি এই অনুশীলনকে, নতুন অভিজ্ঞতা বলছেন টাইগার টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। তারপরও মাঠে ফিরতে পেরেই খুশি তিনি।

এতো কাছে তবু এতো দূরে। একসাথেই অনুশীলনে মুশফিক-ইমরুল। করোনার এই ক্রান্তিকালে মানতেই হবে সামাজিক দূরত্ব।

কিছুক্ষণ পরই ব্যাট-প্যাড নিয়ে ইনডোরে যান মুমিনুল। স্মিতহাসিতে জানিয়ে দিলেন নিজের স্বস্তি।

১০ দিনের বিরতি শেষে আবারো মাঠে ক্রিকেটাররা। তবে আলাদা নজর ছিলো টাইগারদের দুই ফরম্যাটের দুই অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ-মুমিনুলের দিকেই। প্রথম দফায় মুশফিক-ইমরুলরা অনুশীলন করলেও, আজই যোগ দিলেন এই দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার।

মনে হলো ঐচ্ছিক অনুশীলনে প্রথম নেমেই রিয়াদ যেন আরো চনমনে।

লকডাউনে শরীরের অতিরিক্ত মেদ ঝরানোর প্রমাণ স্পষ্ট। জিম করলেন, দৌঁড়ালেন পাক্কা দু’ঘন্টা । যেন বয়স তার কাছে নস্যি। এরপর ইনডোরে ব্যাটিং অনুশীলন।

করোনাকালে প্রথমবারের মতো হোম অব ক্রিকেটে মুমিনুল। সবকিছুই যেন নতুন লাগছে তার। প্রথম দিনেই নিজেকে ঝালিয়ে নিলেন আড়াই ঘন্টার বেশি। ইতিবাচক মিমি, আশাবাদি লঙ্কা সিরিজ নিয়েও।

অনুশীলন শেষে তিনি বলেন, সাধারণত সারাবছর খেলাধুলার ব্যস্ততায় ফিটনেস নিয়ে আমরা এতোটা গভীরভাবে আলোচনা করতে পারিনা। এবার সে বিষয়ে সবাই নজর দিয়েছে। নিজেদের মতো করে ফিটনেস ঠিক রাখার চেষ্টা করেছে। কারো কোথাও ঝামেলা থাকলে সেসব শুধরে নেয়ার চেষ্টা করেছে। সবমিলিয়ে একেবারে খারাপও হয়নি।

প্রথম দফার ঐচ্ছিক অনুশীলনে সবচে’ নিয়মিত মিঠুন-মুশফিকও নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছেন জিম রানিং আর ব্যাটিং করে।

সাব্বির রহমান আসেন সবার শেষে। মাঝে একাডেমির ১৬ নম্বর উইকেটে বোলিং অনুশীলনটা সেরেছেন তাইজুল, রানা, তাসকিন, শফিউলরা।

ঢাকার বাইরে এদিন প্রথমবারের মতো ব্যাটিং অনুশীলনের সুযোগ পেয়েছেন ক্রিকেটাররা। রাজশাহীর ইনডোরে দীর্ঘক্ষণ নিজেকে ফিরে পাওয়ার সংগ্রাম শান্ত-সানজামুলদের।

সিলেটে অনুশীলনে ফিরেই বোলিংয়ে ঝড় তুলেছেন। টানা ৫ ওভার করে বোলিং করেছেন এবাদাত হোসাইন। নাসুম, খালিদ, রাহি সীমাবদ্ধ ছিলেন শুধু রানিং আর ফিটনেস ট্রেইনিংয়েই।

খুলনায় প্রথম দিনে জিমে সময় কাটিয়েছেন মেহেদী মিরাজ। ব্যাটিংয়ের সঙ্গে রানিং করেছেন মেহেদী, সোহান’রা। আর চট্টগ্রাম দ্বিতীয় দফার প্রথম দিনে নাঈম হাসানের সঙ্গী হয়েছেন ইয়াসির রাব্বি-ইরফান শুক্কুর।