করোনায় প্রথমবার অনুশীলনে তামিম-মুস্তাফিজ

দুইদিন বিরতি শেষে আবারো ব্যক্তিগত ঐচ্ছিক অনুশীলনে ফিরেছেন ক্রিকেটাররা। ঢাকায় প্রথমবারের মতো অনুশীলন করেছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল ও পেসার মুস্তাফিজুর রহমান৷ দীর্ঘক্ষণ রানিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিং অনুশীলন করেছেন দেশসেরা ওপেনার। তবে মুস্তাফিজ করেছেন শুধু রানিং।

ঢাকা ছাড়াও দেশের আরো ৬ ভেন্যুতে অনুশীলন করেছেন ২৩জন ক্রিকেটার। যেখানে নতুন ভেন্যু হিসেবে যুক্ত হওয়া রংপুরে নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছেন তিন টাইগ্রেস ক্রিকেটার পিংকি, সুবহানা আর সানজিদা।

একফ্রেমে বাংলার দুই কাপ্তান। একজন খেলার পাঠ চুকিয়ে গুরু দায়িত্বপালন করছেন নির্বাচকের। অন্যজনের হাতে টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়কত্বের আর্মব্যান্ড। বাশার-তামিমের গুরুগম্ভীর এই আলোচনা যে আসন্ন লঙ্কা সফরকে ঘিরে, সেটা তো সহজেই অনুমেয়।

কিছুক্ষণ বাদে শরতের বৃষ্টির মতো ক্ষণিক দেখা টেস্ট দলপতি মুমিনুলের সঙ্গে। কোভিডকালে নিয়ম মেনে দূর থেকেই হলো আলাপন। হালকা থেমে মিমি চললেন ইনডোরের পানে। তামিম ড্রেসিংরুমে।

মিরপুরের আকাশে এদিনও ছিলো রোদবৃষ্টির খেলা। দফায় দফায় বৃষ্টির হানায় ব্যাঘাত ঘটেছে অনুশীলনে। তবে কোয়ারেন্টাইন থেকে ফেরা তামিম ছিলেন অদম্য। ১০টা থেকে রানিং করলেন পাক্কা আধা ঘন্টা। ৫বার চক্বর দিলেন হোম অব ক্রিকেটে।

বৃষ্টির বাগড়ায় মুস্তাফিজ করতে পারেননি বোলিং অনুশীলন। অগত্যা থেমেছেন শুধু রানিং করে। প্রতি ল্যাপ শেষে তার এমন হাঁপানোর দৃশ্য বলে দেয়, ফিটনেসে ঠিক কতোটা মরচে ধরেছে তার!

বোলিং না করতে পেরে তরুণ পেসার মেহেদী রানাও করেছেন শুধু রানিং। তবে এদিক থেকে সৌভাগ্যবান তাইজুল। ১৬ নম্বর উইকেটে নাটোরের এই ক্রিকেটার রোববারের একমাত্র বোলার হিসেবে করতে পেরেছেন বোলিং অনুশীলন। করেছেন ৩৪টা বল। এরমধ্যে স্ট্যাম্পই ভেঙ্গেছেন ২১বার। নিজেকে প্রমাণে মুখিয়ে আছেন কলম্বোয়।

ছিলেন অনুশীলনের নিয়মিত মুখ সৌম্য-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ। তিনজনই করছেন নিয়ম মেনে রানিং-জিম-স্ট্রেচিং আর ব্যাটিং অনুশীলন।

সিলেটে দিনটা ছিলো পেসারদের। রাহী আর এবাদত দুজন মিলে সেরেছেন বোলিং অনুশীলন। তাদের বিরুদ্ধে ব্যাটিং প্র্যাকটিসটা সেরেছেন নাসুম।

রাজশাহীর ইনডোরে ব্যাটিংয়ে ঘাম ঝরিয়েছেন শান্ত। পরে তাতে যোগ দিয়েছেন সানজামুল ও সাব্বির রহমান।

মঙ্গলবারও নিয়ম মেনে সকাল সাড়ে আটটা থেকে হবে অনুশীলন। যেখানে নিজেদের ঝালিয়ে নেবেন ২০ ক্রিকেটার।