The Rising Campus
News Media
শুক্রবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩

‘ভণ্ড’ চিকিৎসকদের ভরসা করে পঙ্গু হওয়ার আফসোস তসলিমার

‘এক্সরেটা নিজে দেখলাম না কেন’!

অনেকেই জানেন না, চিকিৎসাবিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা তসলিমা নাসরিনের। কেন নিজে ভাল করে সব খতিয়ে দেখেননি, সেই নিয়ে আফসোস লেখিকার।

একের পর এক ফেসবুক পোস্টে চিকিৎসকদের গাফিলতির চরম নিন্দা করেছেন লেখিকা। লেখিকার দাবি, এক শল্যচিকিৎসক কার্যত জোর করে তাঁর ‘হিপ রিপ্লেসমেন্ট’ অস্ত্রোপচার করেছেন। অস্ত্রোপচারের পর থেকেই তিনি আর চলতে পারছেন না।

বৃহস্পতিবার সকালে ফেসবুকে তসলিমা স্পষ্ট করে দিলেন, চিকিৎসা বিভ্রাটের কারণে পঙ্গু হতে চলেছেন তিনি। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, তার সুস্থ অঙ্গ কেটে বাদ দিয়ে দিয়েছেন চিকিৎসকরা। বৃহস্পতিবার রাত ৯ টা নাগাদ আবারও লিখলেন তসলিমা। ‘‘ধিক্কার দিচ্ছি নিজেকে। ধিক্কার দিচ্ছি এত কালের আমার মেডিক্যাল জ্ঞানকে। আমাকে হাসপাতালে মিথ্যে কথা বলা হয়েছিল যে, আমার হিপ বোন ভেঙ্গেছে। আমার কোনও জয়েন্ট পেইন ছিল না, জয়েন্ট ডিজিজ ছিল না। আমাকে মিথ্যে কথা বলে, ফিমার ফ্র্যাকচারের ট্রিটমেন্টের নামে আমাকে হিপ জয়েন্ট কেটে, ফিমার কেটে ফেলে দিয়ে আমাকে সারা জীবনের জন্য পঙ্গু বানিয়ে দেওয়া হয়েছে। ধিক্কার দিচ্ছি আমি কেন ক্রিমিনাল টিমের ট্র্যাপে পড়লাম। আজ আমি এক্সরে রিপোর্ট দেখলাম আমার। আমার কোথাও কোনও ফ্র্যাকচার হয়নি সে দিন,’’ ক্ষোভ উগরে লিখলেন তিনি।

তসলিমার এই পোস্ট দেখে চিন্তায় পড়েছেন অনুরাগীরা। নামী-দামি হাসপাতালের চিকিৎসার এমন হাল দেখে সাধারণের মনে ভীতি তৈরি হয়েছে। লেখিকাকে সেই চিকিৎসক কিংবা হাসপাতালের নাম তাঁর কোনও পোস্টেই উল্লেখ করেননি। তিনি তাঁদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেবেন, সেই দিকেই তাকিয়ে তাঁর অনুরাগীরা।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. আন্তর্জাতিক
  3. ‘ভণ্ড’ চিকিৎসকদের ভরসা করে পঙ্গু হওয়ার আফসোস তসলিমার

‘ভণ্ড’ চিকিৎসকদের ভরসা করে পঙ্গু হওয়ার আফসোস তসলিমার

অনেকেই জানেন না, চিকিৎসাবিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা তসলিমা নাসরিনের। কেন নিজে ভাল করে সব খতিয়ে দেখেননি, সেই নিয়ে আফসোস লেখিকার।

একের পর এক ফেসবুক পোস্টে চিকিৎসকদের গাফিলতির চরম নিন্দা করেছেন লেখিকা। লেখিকার দাবি, এক শল্যচিকিৎসক কার্যত জোর করে তাঁর ‘হিপ রিপ্লেসমেন্ট’ অস্ত্রোপচার করেছেন। অস্ত্রোপচারের পর থেকেই তিনি আর চলতে পারছেন না।

বৃহস্পতিবার সকালে ফেসবুকে তসলিমা স্পষ্ট করে দিলেন, চিকিৎসা বিভ্রাটের কারণে পঙ্গু হতে চলেছেন তিনি। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, তার সুস্থ অঙ্গ কেটে বাদ দিয়ে দিয়েছেন চিকিৎসকরা। বৃহস্পতিবার রাত ৯ টা নাগাদ আবারও লিখলেন তসলিমা। ‘‘ধিক্কার দিচ্ছি নিজেকে। ধিক্কার দিচ্ছি এত কালের আমার মেডিক্যাল জ্ঞানকে। আমাকে হাসপাতালে মিথ্যে কথা বলা হয়েছিল যে, আমার হিপ বোন ভেঙ্গেছে। আমার কোনও জয়েন্ট পেইন ছিল না, জয়েন্ট ডিজিজ ছিল না। আমাকে মিথ্যে কথা বলে, ফিমার ফ্র্যাকচারের ট্রিটমেন্টের নামে আমাকে হিপ জয়েন্ট কেটে, ফিমার কেটে ফেলে দিয়ে আমাকে সারা জীবনের জন্য পঙ্গু বানিয়ে দেওয়া হয়েছে। ধিক্কার দিচ্ছি আমি কেন ক্রিমিনাল টিমের ট্র্যাপে পড়লাম। আজ আমি এক্সরে রিপোর্ট দেখলাম আমার। আমার কোথাও কোনও ফ্র্যাকচার হয়নি সে দিন,’’ ক্ষোভ উগরে লিখলেন তিনি।

তসলিমার এই পোস্ট দেখে চিন্তায় পড়েছেন অনুরাগীরা। নামী-দামি হাসপাতালের চিকিৎসার এমন হাল দেখে সাধারণের মনে ভীতি তৈরি হয়েছে। লেখিকাকে সেই চিকিৎসক কিংবা হাসপাতালের নাম তাঁর কোনও পোস্টেই উল্লেখ করেননি। তিনি তাঁদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেবেন, সেই দিকেই তাকিয়ে তাঁর অনুরাগীরা।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন