এইচএসসি পরীক্ষায় অনিশ্চয়তা, প্রস্তুতি নিয়ে উৎকণ্ঠায় শিক্ষার্থীরা

পুরো দুনিয়ায় এখন এক আতংকের নাম করোনাভাইরাস, যে ভাইরাসের থাবায় জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে। করোনার ফলে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও বন্ধ রাখা হয়েছে। এ অবস্থায় হুমকির মুখে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা। অপরদিকে শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা নিয়ে নানা মানসিক দুঃশ্চিন্তায় ভুগছেন। বিশেষ করে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠা যেন কিছুতেই কাটছে না।

জানা গেছে, নির্ধারিত সময়ে পরীক্ষা না হওয়াতে তাদের সব প্রস্তুতি ভেস্তে গেছে। শিক্ষার্থীদের পুরো প্রস্তুতি এলোমেলো হয়ে সব আশা হতাশার আঁধারে ডুবে গেছে। একইসাথে সন্তানদের শিক্ষাজীবন নিয়ে উদ্বিগ্ন অভিভাবকরাও।কবে এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে, তা জানা নেই কারোর।

চট্টগ্রাম বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল মাদ্রাসা থেকে এবারের আলিম পরীক্ষার্থী মুহাম্মদ তাওকীর দ্যা রাইজিং ক্যাম্পাসকে বলেন, পড়াশোনায় হঠাৎ এই ছন্দপতনের কারণে আমরা পড়াশোনার প্রতি উদাসীন হয়ে গেছি। যা গুছিয়ে এনেছিলাম, তাও ভেস্তে গেছে। এই লকডাউন আমাদের মনস্তত্ত্বকে নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত করেছে, যার দরুন আমরা আমাদের পরীক্ষা নিয়ে আত্মবিশ্বাসহীনতায় ভুগছি।

চট্টগ্রাম সরকারি বাকলিয়া কলেজ থেকে এবারের এইচএসসি পরীক্ষার্থী মো: রকিবুল ইসলাম ফাহিম দ্যা রাইজিং ক্যাম্পাসকে বলেন, সঠিক সময়ে পরীক্ষা না হওয়ার কারণে ধারাবাহিক পড়ালেখা থেকে আমাদের মনোযোগ সরে যায়। এর ফলে সব শিক্ষার্থীকেই অনেক ক্ষতিগ্রস্থ হতে হচ্ছে। এমন সময়ে পড়ালেখায় মনোযোগ দেওয়াও কষ্টকর। কারণ পরীক্ষার অনিশ্চয়তার কারণে পড়ায় মন বসানো কঠিন।

তিনি বলেন, বিশেষ করে ভর্তি পরীক্ষার ক্ষেত্রেও সকলকে ক্ষতিগ্রস্থ হতে হয়েছে এই লকডাউনে। আশা করি, আবার স্বাভাবিক অবস্থাই ফিরে যাব এবং আমাদের পরীক্ষাও সুন্দরভাবে হবে।

আরেক এইচএসসি পরীক্ষা সুরাইয়া দ্যা রাইজিং ক্যাম্পাসকে বলেন, পরীক্ষার যা প্রস্তুতি নিয়েছিলাম, তা ভুলতে বসেছি। এখন আর পড়তেও ভালো লাগে না। এক ধরনের অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটছে।

এদিকে সর্বশেষ গত শনিবার ভার্চুয়াল মাধ্যমে শিক্ষকদের অনলাইনে প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।