এইচএসসির অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নে শিক্ষকেরা ৮ নির্দেশনা

চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম চলছে। শিক্ষার্থীদের গ্রুপভিত্তিক তিনটি বিষয়ে অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম চলছে। শিক্ষকদের এসব শিক্ষার্থীর অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়ন করতে হবে। এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নে শিক্ষকদের জন্য নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)।

শিক্ষা অধিদপ্তর শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নে সার্বিক দিক তুলে ধরা হয়েছে। শিক্ষা অধিদপ্তর জানিয়েছে, অ্যাসাইনমেন্টের বিষয়ে প্রকৃতি, চাহিদা, পরিসর, ধাপ, চিন্তার ব্যাপকতা ও শিক্ষার্থীর লেখার মধ্যে সৃজনশীলতা ও মৌলিক বিষয় যথাযথভাবে মূল্যায়নের জন্য প্রতিটি বিষয়ের প্রতিটি অ্যাসাইনমেন্টর জন্য ভিন্ন ভিন্ন রুবিক্স সংযোজন করা হয়েছে। রুবিক্সে প্রতিটি মূল্যায়নের জন্য পারদর্শিতার মাত্রাও নির্ধারণ করা হয়েছে। মূল্যায়নের ক্ষেত্রে প্রতিটি নির্দেশকের জন্য আলাদা আলাদা নম্বর দিয়ে মোট প্রাপ্ত নম্বর নির্ধারণ করতে হবে। অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের অবহেলা, অতিমূল্যায়ন বা অমূল্যায়ন করা যাবে না। অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে ভেতরে সবল অংশে কালো কালি ও দুর্বল অংশে লাল কালি দিয়ে চিহ্নিত করতে হবে।

মাউশি বলেছে, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) কর্তৃক প্রণীত ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রতি শাখার নৈর্বাচনিক তিনটি বিষয়ে অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম চলমান আছে। শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে শিক্ষকদের আটটি নির্দেশনা মেনে মেনে চলতে হবে।
১.
শিক্ষার্থীদের করা অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে সামঞ্জস্য ও সমরূপতা আনতে শিক্ষকদের প্রতিটি অ্যাসাইনমেন্টের জন্য তৈরি করা মূল্যায়ন নির্দেশনা (রুব্রিক্স) অনুসরণ করতে হবে;
২.
রুব্রিক্স অনুসরণ করে পরীক্ষার্থীরাও যাতে তাদের অ্যাসাইনমেন্টগুলো প্রস্তুত করতে পারে সে বিষয়ে নির্দেশনা দিতে হবে;
৩.
অ্যাসাইনমেন্টের বিষয়ের প্রকৃতি, চাহিদা, পরিসর, ধাপ, চিন্তার ব্যাপকতা এবং শিক্ষার্থীর লেখার মধ্যে সৃজনশীলতা ও মৌলিক বিষয় ইত্যাদি যথাযথভাবে মূল্যায়নের জন্য প্রতিটি বিষয়ের প্রতিটি অ্যাসাইনমেন্টের জন্য ভিন্ন ভিন্ন রুব্রিক্স সংযোজন করা হয়েছে;
৪.
রুব্রিক্স প্রতিটি মূল্যায়ন নির্দেশকের জন্য পারদর্শিতার মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। মূল্যায়নের ক্ষেত্রে প্রতিটি নির্দেশকের জন্য আলাদা আলাদা নম্বর দিয়ে মোট নম্বর নির্ধারণ করতে হবে;
৫.
অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে নির্ধারিত ছকে শিক্ষকের নাম স্বাক্ষর ও তারিখ উল্লেখ করতে হবে;
৬.
অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের অবহেলা, অতিমূল্যায়ন বা অবমূল্যায়ন করা যাবে না;
৭.
অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে ভেতরে সবল অংশ কালো কালি দিয়ে এবং দুর্বল অংশ লাল কালি দিয়ে চিহ্নিত করতে হবে;
৮.
মুখস্থ করে বা হুবহু পাঠ্যবই থেকে লিখে অ্যাসাইনমেন্ট তৈরি না করে পাঠ্যবইয়ের অর্জিত জ্ঞান ও দক্ষতা কাজে লাগিয়ে শিক্ষার্থীর চিন্তাভাবনা, কল্পনাশক্তি, অনুধাবন ক্ষমতা, উদ্ভাবনী ক্ষমতা, স্বকীয়তা, সৃজনশীল ও নান্দনিক উপায়ে উপস্থাপন করার দক্ষতাকেই মূল্যায়নের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিতে হবে।

এসব নির্দেশনা অনুসরণ করে চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়ন করতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর।

**মাউশির অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়ন নির্দেশনা দেখতে এখানে ক্লিক করুন; the rising campus