ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন আজ

প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন চারজন প্রার্থী।

ইরানের ১৩তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচন আজ শুক্রবার (১৮ জুন)। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনসহ মোট চারটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে।
সকাল ৭টায় শুরু হয়েছে ভোটগ্রহণ, চলবে রাত ১২টা পর্যন্ত। তবে প্রয়োজন হলে ভোট দানের সময় আরও বাড়ানো হতে পারে। আগামীকাল শনিবার (১৯ জুন) দুপুরের আগেই নির্বাচনের ফল ঘোষণা করা হবে।
নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ের জন্য নিবন্ধন করেছিলেন মোট ৫২৯ জন। এর মধ্যে চূড়ান্ত প্রার্থী হিসাবে অনুমোদন পেয়েছিলেন সাতজন।

এরমধ্যে একেবারে শেষ সময়ে এসে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন তিন প্রার্থী। তিনজন সরে দাঁড়ানোয় প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন চারজন প্রার্থী। এর মধ্যে জনমত জরিপে এগিয়ে রয়েছেন বিচার বিভাগের প্রধান আয়াতুল্লাহ ইব্রাহিম রায়িসি।
নির্বাচনে ইরানি নাগরিকদের ব্যাপক হারে ভোটদানের আহ্বান জানিয়ে দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি বলেন, ‘শত্রুরা তার দেশের নির্বাচনে জনগণের উপস্থিতি কমিয়ে দিয়ে ইরানকে সন্ত্রাসবাদের লালনভূমিতে পরিণত করতে চায়। কিন্তু ইরানি জনগণ সে ষড়যন্ত্র সফল হতে দেবে না।’
নিজে খুব সকালে ভোট দেবেন উল্লেখ করে এক ভাষণে তিনি বলেন, সব ক্ষেত্রে ইরানের ভবিষ্যৎ আগামী শুক্রবারের নির্বাচনে জনগণের ভোটাধিকার প্রয়োগের ওপর নির্ভর করছে। নিজেদের হাতে দেশের ভাগ্য গঠন করার সুযোগ পাচ্ছে দেশের জনগণ। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সর্বোচ্চ মাত্রায় ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে হবে।
এরআগে তেহরানে দ্বিতীয় টেলিভিশন বিতর্কে অংশ নেন ইরানের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নেওয়া ৭ প্রার্থী। তুলে ধরেন প্রতিশ্রুতি এবং নিজেদের ভবিষ্যত পরিকল্পনা।
এছাড়া দুর্নীতিমুক্ত এবং সামরিকভাবে শক্তিশালী ইরান গঠনেরও প্রত্যয় ব্যক্ত করেন প্রার্থীরা। তবে ইরানের পরবর্তী সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে দেশটিকে আরও শত শত নিষেধাজ্ঞার জন্য অপেক্ষা করতে বলেছে যুক্তরাষ্ট্র।