The Rising Campus
News Media

ইবাইস ইউনিভার্সিটি’কে বিশ্বমানের বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত করতে চাই: ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য

স্বল্প খরচে উন্নতমানের উচ্চশিক্ষা দানে ইবাইস ইউনিভার্সিটি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি অন্যান্য বিশ্বদ্যিালয় থেকে অনেক কম। গ্রাম বাংলার সাধারণ পরিবারের শিক্ষার্থীদের জন্য খুবই শিক্ষাবান্ধব। বিশ্ববিদ্যালয় হল ছাত্রছাত্রীদের জন্য, ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষার জন্য। আমরা চাই তারা যেন শিক্ষার উপযুক্ত পরিবেশ পায় । আধুনিক বিশ্বে যে সব শিক্ষাদানের সুযোগ
সুবিধা ও টেকনোলোজি প্রচলিত আছে সেগুলোর মাধ্যমে তারা যেন উপকৃত হতে পারে, সেই দিকেই আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি। সেই লক্ষ্যেই আধুনিক ও উন্নত বিশ্বের সাথে সামঞ্জস্যতার জন্য আউট কাম বেইজড এডুকেশনের যে সমস্ত প্রয়োজনীয়তা বা আবশ্যিকতা সেগুলো আমরা নিশ্চিত করেছি। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাদান পদ্ধতি বা কারিকুলাম পৃথিবীর যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে তুলনা করার মত। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে আউট কাম বেইজড এডুকেশন কিছুটা নতুন, কিন্ত উন্নত বিশ্বে এইটা বহু আগেই চলে আসছে। বাংলাদেশ সরকারের এই উদ্যোগকে আমি আন্তরিকভাবে সমর্থন করি ও সংশ্লিষ্ঠ সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। আমি মনে করি এই বিষয়গুলো অনুসরন করলে , বর্তমান উচ্চশিক্ষার মান এবং শিক্ষার্থীদের মৌলিক চাহিদাপূরনে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলো আরো এগিয়ে যাবে। তাছাড়া সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাদান পদ্ধতি ও মানের সমন্বয় শিক্ষার আউটকাম গুলিকে সমন্বয় করবে।

উন্নত শিক্ষা প্রদানের সকল আয়োজন আমরা সম্পন্ন করেছি, উত্তরা মডেল টাউনে ক্যাম্পাস, বিশাল একাডেমিক বিল্ডিং, শিক্ষাবান্ধব পরিবেশ, প্রাকৃতিক পরিবেশ, ছাত্রশিক্ষক সম্পর্ক, বিশাল খেলার মাঠ, উন্নত লাইব্রেরী, করোনাকালীন সময়ে যেসকল সুযোগ সুবিধা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল সেগুলো আবার চালু হচ্ছে যা ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষাগ্রহণে আরো উদ্বুদ্ধ করবে। শিক্ষকদের শিক্ষাদান পদ্ধতি ও কৌশল উন্নতকরনে আমরা শিক্ষকদের জন্য ওয়ার্কশপের ব্যবস্থা করছি । যাতে শিক্ষকরা উপযুক্ত প্রস্তুতি নিয়ে খুব ভালোভাবে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাদান করতে পারে।

আমরা আমাদের পরীক্ষাপদ্ধতিতে কোন ফাকি বা অসুদুপায় অবলম্বনের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছি। আমরা চাই আমাদের শিক্ষার্থীরা কর্মক্ষেত্রে গিয়ে পেশাগত জ্ঞান ও নৈতিকতার স্বাক্ষর রাখুক। আমরা চাই আমাদের শিক্ষার্থীরা এমনভাবে গড়ে উঠুক , যাতে তার দ্বারা যেন সমাজ উপকৃত হয়, মানুষ উপকৃত হয়, সে যেন দেশের সেবায় উদ্বুদ্ধ হয় । সমাজের মানুষ যেন ইবাইস ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের একজন আলোকিত মানুষ হিসেবে চিনতে পারে।

আমরা আমাদের শিক্ষকদের মানুষের রোল মডেল, জ্ঞানের উজ্জ্বল তারকা হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। যাতে শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষকদের দেখে আরো উৎসাহিত হয়। শিক্ষকদের উপদেশগুলো গ্রহণ করে তারা যেন আরো এগিয়ে যেতে পারে এবং জ্ঞানের জগতে নিজেকে দৃঢ়ভাবে এগিয়ে নিতে পারে । এই সকল কর্মকান্ডের মাধ্যমে ইবাইস ইউনিভার্সিটি পূর্বের চেয়ে আরো বেশী শিক্ষার্থীবান্ধব বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হবে এবং অচিরেই ইবাইস ইউনিভার্সিটি উচ্চশিক্ষাখাতে সারাদেশে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমান করবে ইনশাআল্লাহ।

প্রফেসর ড. জাকারিয়া লিংকন
প্রতিষ্ঠাতা ও ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য
ইবাইস ইউনিভার্সিটি

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.