ইউএনওকে আপা বলায় ব্যবসায়ীকে লাঠিপেটা

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুনা লায়লাকে আপা বলায় তপন চন্দ্র দাশ (৪৫) নামের এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে লাঠিপেটা করার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার জায়গীর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। লাঠিপেটার শিকার তপন চন্দ দাসের বাড়ি উপজেলার জয়মন্টপ গ্রামের গুরুচন্দ দাশের ছেলে।

জানা গেছে, সরকার ঘোষিত লকডাউন কার্যকরে বের হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুনা লায়লা। তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার বিকালে জায়গীর বাজারে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালান তিনি। এ সময় প্রিতম জুয়েলার্স খোলা থাকায় ওই দোকানে ঢুকে একাধিক ক্রেতা ও দোকান মালিক তপন চন্দ দাশকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অ্যাক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ইউএনও রুনা লায়লা জরিমানা করেন। এক পর্যায়ে তপনকে শাসানো হলে ইউএনওকে আপা বলে ক্ষমা চান তিনি। এতে ইউএনও ক্ষিপ্ত হলে তার সঙ্গে থাকা আনছার বাহিনীর এক সদস্য ওই ব্যবসায়ীকে লাঠিপেটা করেন।

ভুক্তভোগী তপন বলেন, কথা বলার সময় ইউএনওকে আমি আপা বলি। আপা বলার পর কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমাকে লাঠি দিয়ে তিনটি বারি মারে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুনা লায়লা বলেন, মারধরের কোনো ঘটনা ঘটেনি। দোকানে অনেক লোকের সমাগম থাকায় মালিকসহ ক্রেতাদের জড়িমানা করে দোকানটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।