আল্লাহ সবাইকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে রক্ষা করুন

অসুস্থতা নিয়ে গুজবের প্রেক্ষিতে মুখ খুললেন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শহীদ আফ্রিদি। জানালেন, তিনি সুস্থ আছেন এবং খুব শিগগিরই সামাজিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত হতে যাচ্ছেন।
পাকিস্তান ক্রিকেটের সঙ্গে সম্পৃক্ত প্রায় সবাই সাবেক অধিনায়ক আফ্রিদির করোনা আক্রান্তের খবরে বেশ অবাক হয়েছেন। সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটাররা ছাড়াও ভক্তদের অনেকেই তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন। কিন্তু কেউ কেউ আবার গুজবের আশ্রয়ও নিয়েছেন। এসব গুজবের মধ্যে ছিল তার শারীরিক অবস্থার অবনতির খবর। আর এতেই খেপেছেন সাবেক অলরাউন্ডার।

গুজবের জবাবে ‘দ্য নিউজ’কে আফ্রিদি বলেন, ‘আল্লাহ সবাইকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম থেকে রক্ষা করুন।’ ৪০ বছর বয়সী জানিয়েছেন, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে প্রতিদিন তিনি হাজারো ফোন আর ম্যাসেজ পেয়েছেন। তাদের সবার প্রতি তার বার্তা ছিল একটাই, দ্রুত ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সেরে উঠছেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘আমি জানি না কতটা গুজব ছড়িয়েছে। আমি সারা বিশ্ব থেকে হাজারো কল এবং ম্যাসেজ পেয়েছি। তাদের সবার প্রতি আমার বার্তা হচ্ছে, আমি কোভিড-১৯ থেকে দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছি এবং শিগগিরই আমি সামাজিক কর্মকাণ্ডে ফিরতে চলেছি।’

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার প্রথম কয়েকদিন বেশ কষ্ট হয়েছে আফ্রিদির। তবে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের জন্য সবচেয়ে কষ্টদায়ক ঘটনা ছিল দুস্থদের সহায়তা করতে না পারা। তিনি বলেন, ‘শারীরিক কষ্ট এবং অসুবিধা সত্ত্বেও, আমার জন্য সবচেয়ে কষ্টদায়ক অভিজ্ঞতা হলো এই কঠিন সময়ে আমার দেশের অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে আমার ভূমিকা পালন করতে না পারা। এজন্য আমি শক্তি ফেরাতে এবং সামাজিক কাজ শুরু করার জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি।’

সংক্রমিত হওয়া সম্পর্কে এই আইকনিক অলরাউন্ডার জানান, প্রথম কয়েকদিন বেশ কষ্ট হয়েছে। তবে বিশ্রাম, গরম পানির ভাপ নেওয়া এবং নিয়মিত আদা চা খাওয়ায় তার শক্তি পুনরুদ্ধার করা সহজ হচ্ছে। আফ্রিদি বলেন, ‘এটা (সংক্রমিত) হুট করেই হয়েছে। একদিন সব ঠিকঠাক চলছিল এবং এর পরদিন আমি অসুস্থ বোধ করছিলাম। আমার জ্বর চলে এসেছিল। মাথা ব্যথা করছিল। শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। আমি ঘুমাতে পারছিলাম না। শরীরে কোনো ব্যথা ছিল না কিন্তু কোনো শক্তি পাচ্ছিলাম না।’

‘কিন্তু সৌভাগ্যবশত বিশ্রাম, গরম ভাপ নেওয়া এবং আদা চা খাওয়ায় ভালো অনুভব করছি। ইনশাল্লাহ, আমি শিগগিরই কাজে ফিরব,’শেষ করেন তিনি।