আরও একধাপ এগিয়ে গেল লিভারপুল

শিরোপা জয়ের পথে আরও একধাপ এগিয়ে গেল লিভারপুল। ঘরের মাঠ অ্যানফিল্ডে ক্রিস্টাল প্যালেসকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে সালাহ, ফ্যাবিয়ানোরা। আর মাত্র দুই পয়েন্ট পেলেই শিরোপা জয়ের আক্ষেপ ঘোচাবে অলরেডরা। আরেক ম্যাচে শেফিল্ড ইউনাইটেডের বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। অ্যান্থনি মার্শালের হ্যাটট্রিকে লকডাউনের পর প্রথম জয়ের দেখা পেলো রেড ডেভিলরা।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে লিভারপুল মানেই যেন একটা আক্ষেপ। হতাশার প্রতিচ্ছবি। যাদের যোগ্যতা কিংবা দক্ষতায় কোন প্রশ্ন নেই। তবু্ও আছে হতাশা, না পাওয়ার বেদনা।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শুরু থেকে এখন অবধি শিরোপা না পাওয়ার হতাশায় জর্জরিত লিভারপুল। সময় দীর্ঘ ৩০ বছর। সবশেষ উনিশ শতকে ইংল্যান্ডের শীর্ষ পর্যায়ের ঘরোয়া লিগের শিরোপা ছুঁয়েছিল লিভারপুল। একবিংশ শতাব্দীতে অল রেডদের অনবদ্য পারফম্যান্স। তবুও বারবার সঙ্গী সেই হতাশাই।

এবার শিরোপা জয়ের হাতছানি। অপেক্ষা আর মাত্র দুটি পয়েন্টের জন্য। শিরোপা জয়ের পথে ক্রিস্টাল প্যালেসকে উড়িয়ে দিয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপ শীষ্যরা।

ঘরের মাঠ অ্যানফিল্ডে রীতিমতো আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছে অলরেডরা। যদিও এর আগে লম্বা সময় পর মাঠে ফিরে এভারটনের বিপক্ষে ড্র করে শঙ্কা জাগিয়েছিল লিভারপুল। কিন্তু ঘুরে দাঁড়াতে সময় নেয়নি সালাহ, সাদিও মানিরা। অ্যানফিল্ডে গেলো ২২ ম্যাচে অপ্রতিরোধ্য তারা।

প্রথমার্ধ্বের ২৩ মিনিটে লিড পায় লিভারপুল। ফ্রি কিক থেকে গোল করে অলরেডদের এগিয়ে নেন আলেক্সান্দার। এরপর ৪৪ মিনিটে বিরতিতে যাবার আগ মুহূর্তে প্রতিপক্ষের জালে পেরেক ঠুকেন মোহাম্মদ সালাহ।

বিরতির পরও অপ্রতিরোধ্য ক্লপ শীষ্যরা। ৫৫ মিনিটে দলের পক্ষে তৃতীয় গোল করে লিড বাড়ান ফ্যাবিয়ানো। থেমে থাকেননি সাদিও মানেও। দলের হয়ে চতুর্থ গোল করেন তিনি। একের পর এক গোল হজম করে পুরো ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগই পায়নি ক্রিস্টাল প্যালেস।

৩১ ম্যাচে ৮৬ পয়েন্ট নিয়ে শিরোপা জয়ের দ্বারপ্রান্তে লিভারপুল। বাকি থাকা সাত ম্যাচে আর দুই পয়েন্ট পেলেই শিরোপা জয়ের আক্ষেপ ঘুচবে লিভারপুলের। এদিকে, সমান ম্যাচে ক্রিস্টাল প্যালেসের সংগ্রহ ৪২ পয়েন্ট।