আফগান ভাইস প্রেসিডেন্টকে লক্ষ্য করে বোমা হামলা

আফগানিস্তানের ভাইস প্রেসিডেন্ট আমরুল্লাহ সালেহ’কে লক্ষ্য করে কাবুলে বোমা হামলা ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ১০ জন নিহত হন। বুধবার (০৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর ব্যস্ত সড়কের পাশে আফগান ভাইস প্রেসিডেন্টের গাড়ি লক্ষ্য করে পেতে রাখা বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হলে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনায় তিনি সামান্য আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে আফগান প্রেসিডেন্টের দফতর। হামলার সময় গাড়িতে সালেহর সঙ্গে তার ছেলেও ছিলেন। তার ছেলে অক্ষত রয়েছেন বলে জানানো হয়। হামলার পর সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। এর কিছু পরে আবার সেটি স্বাভাবিক করা হয়।

ঘটনার পর তাৎক্ষণাত প্রতিক্রিয়া আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় থেকে ২ জন নিহতের কথা বলা হয়। কিন্তু পরবর্তীতে ১০ জন নিহতের বিষয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমের উদৃতি দিয়ে খবর প্রকাশ করে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

সালেহর মুখপাত্র রাজওয়ান মুরাদ ফেসবুকে লিখেছেন, “বুধবার আরো একবার আফগানিস্তানের শত্রুরা সালেহ’র ক্ষতি করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু তাদের অসৎ উদ্দেশ্য ব্যর্থ হয়েছে। সালেহ অক্ষত রয়েছেন।” তিনি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, সালেহর গাড়িবহর উড়িয়ে দেয়ার জন্যই ওই বোমা পাতা হয়েছিল।

আফগানিস্তানের সেনাবাহিনীর দফতর থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বেসামরিক লোকসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন ঘটনায়। হামলার জন্য রান্নার কাজে ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে তদন্ত কর্মকর্তা।

আমরুল্লাহ সালেহ এক সময় আফগানিস্তানের গোয়েন্দা প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির সঙ্গে দেশটির প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে কাজ করছেন। তাকে হত্যার জন্য এর আগেও বেশ কয়েকবার হামলা হয়েছে।

আজকের হামলার দায় কেউ স্বীকার করেনি। এ বিষয়ে তালেবান জানিয়েছে তারা ঘটনা সম্পর্কে আগে থেকে যেমন কিছুই জানত না। তেমনি তাদের কোনো দূরতম যোগসূত্র নেই। বর্তমানে তারা আফগান সরকারের সঙ্গে চলমান আলোচনা এবং যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে হওয়া চুক্তি মেনে চলছে। তাই তারা কোনো রকম হামলার থেকে বিরত থাকছে।

হামলার কিছুক্ষণ পর ভাইস প্রেসিডেন্ট আমরুল্লাহ সালেহকে বাম হাতে ব্যান্ডেজ নিয়ে অন্য একটি গাড়িতে করে তার কার্যালয়ের দিকে যেতে দেখা গেছে। কাতারে তালেবান ও আফগান সরকারের মধ্যে আলোচনার ঠিক আগ মুহূর্তে এই হামলার ঘটনা ঘটলো।