অস্ট্রেলিয়ায় আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের সুযোগ বাড়ছে

অস্ট্রেলিয়ার অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে মুখ্য ভুমিকা পালন করে আন্তজার্তিক শিক্ষার্থীরা। পৃথিবীর অন্যতম জনপ্রিয় এই শিক্ষাগন্তব্যে তাই শিক্ষার্থীরা অনেকটাই সোনার ডিম পাড়া হাসের মতো। চৌকুস অস্ট্রেলিয়ার সরকার বরাবরই এই খাতকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকেন।

তবে এ বছর করোনাকালে হঠাৎ যেন বেকেঁ বসে সরকার, আকষ্মিক ঘোষণা দিয়ে বসে, শিক্ষার্থীরা নিজ খরচ বহন না করতে পারলে যেন যার যার দেশে ফেরত যায়। অমন আচারণে ঢের সমালোচিত হয় সরকার, তবে দেরী করে হলেও বোধোদয় হয়, ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্টদের কদর না করলে নিজেরাই বেকাদায় পড়বে।

কারণ অস্ট্রেলিয়ার তৃতীয় বৃহৎ অর্থনৈতিক উৎস এই শিক্ষা খাত। এই খাত থেকে বছরে ৪০ বিলিয়ন ডলার আয় এবং ২৫০,০০০ চাকুরীর জায়গা পূরণ করা হয়।

যাই হোক সরকারের সুনজরে বিক্ষিপ্তভাবে শিক্ষার্থীদের দেখভাল করার কিছু অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও কঠোরনীতি থেকে সরে আসার নমনীয়তা ফের শুরু হয়েছে, যদিও চাহিদার তুলনায় তা অপ্রতুল।

তবুও সরকারের ভুল শোধরানোর চেষ্টাটা প্রসংশনীয়। সেই ধারাবাহিকতায়, আরো বেশ কিছু সুবিধা দিয়ে কদর করতে চাইছে সরকার, যাতে আন্তজার্তিক শিক্ষার্থীরা উপকৃত হতে পারে। চলুন দেখি কি কি সেবা দিতে প্রস্তুত ক্যাঙ্গারোর দেশ অস্ট্রেলিয়া।

পাঁচটি ভিসা পরিবর্তন:

১. বিদেশে নতুন শিক্ষার্থীদের শিক্ষার্থী ভিসা দেওয়ার বিষয়ে সরকার পুনরায় বিবেচনা করবে: এর অর্থ যখন সীমানা আবার খোলা হবে, শিক্ষার্থীদের ইতিমধ্যে ভিসা থাকবে এবং তারা ভ্রমণের ব্যবস্থা করতে সক্ষম হবে।

২. বিনামূল্যে ভিসা আবেদন: আন্তর্জাতিক ছাত্ররা যদি কোভিড -১৯ এর কারণে তাদের মূল ভিসার মেয়াদের মধ্যে পড়াশোনা শেষ করতে না পারে তবে তারা আরও বিনা খরচায় ভিসা আবেদন করতে পারবে।

৩. অনলাইন স্টাডিকে পোস্ট-স্টাডি ওয়ার্ক ভিসার প্রয়োজনীয়তার জন্য গণনা করা হবে: কোভিড- ১৯ এর কারণে অস্ট্রেলিয়ার বাইরে অনলাইনে অধ্যয়নরত বর্তমান শিক্ষার্থী ভিসাধারীরা অধ্যায়ন-পরবর্তী কাজের ভিসার জন্য অস্ট্রেলিয়ান অধ্যায়নের প্রয়োজনীয়তার জন্য গণনা করতে সেই অধ্যায়নটি ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন।

৪. অধ্যায়ন-পরবর্তী কাজের অধিকার: শিক্ষার্থী ভিসা প্রাপ্ত স্নাতকরা কোভিড -১৯ এর কারণে যদি তারা ফিরতে না পারেন তবে অস্ট্রেলিয়ার বাইরে পোস্ট-স্টাডি ওয়ার্ক ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

৫. ইংরেজি ভাষা পরীক্ষার ফলাফল দেওয়ার জন্য অতিরিক্ত সময়: আবেদনকারীদের ইংরেজি ভাষার ফলাফল প্রদানের জন্য অতিরিক্ত সময় দেওয়া হবে যেখানে কোভিড-১৯ এই পরিষেবাদিতে অ্যাক্সেস ব্যাহত করেছে।