অবসাদগ্রস্ত ক্রিকেটারদের বলার স্বাধীনতা দিচ্ছেন ডমিঙ্গো

ক্রিকেটাররা মানসিক ও স্বাস্থ্যের ব্যাপারে যেন খোলামেলা আলাপ আলোচনা করতে পারে, দলের মধ্যে এমনই পরিবেশ তৈরি করতে চান বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। ক্রিকেটাররা তাদের মানসিক ও স্বাস্থ্যের ব্যাপারে স্পষ্টভাষী হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি। ক্রিকেট ভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে তিনি বলেন, ‘মানসিক অবসাদ নিয়ে খেলোয়াড়দের সৎ ও স্পষ্টভাষী হওয়া প্রয়োজন।’

ডমিঙ্গো আরও বলেন, ‘এসব বিষয়ে কথা বলতে সব খেলোয়াড় স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবে না। তবে আমরা এমন একটা পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাই, যেখানে আমাদের দল, আমাদের খেলোয়াড়রা কেমন বোধ করছে, তাদের বিশ্রাম দরকার কিনা এবং বিষয়টা মানসিক নাকি শারীরিক, এসব বিষয় নিয়ে স্বাধীনভাবে কথা বলতে পারে। এটার প্রতি আমাদের শ্রদ্ধাশীল হতে হবে, কারণ এটি খেলার একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক।’

তারকা খেলোয়াড়দের মধ্যে মানসিক স্বাস্থ্য ইস্যুতে অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল স্পষ্টভাষী হয়ে মুখ খুলতে পেরেছিলেন। একইরকম কাজ করেছিলেন তরুণ ব্যাটসম্যান নিক ম্যাডিনসন। এছাড়া ইংল্যান্ডের স্টিভ হার্মিসন, মার্কাস ট্রেসকোথিক ও গ্রান্ট ফ্লাওয়ারের মতো খেলোয়াড়রাও হতাশায় ভুগেছিলেন। ডমিঙ্গো জানান, ক্রিকেটাররা কোন সমস্যার মুখোমুখি হলে তা খোলাখুলি আলাপ করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

সম্প্রতি মানসিক স্বাস্থ্যের কথা বলেছিলেন বাংলাদেশের সাবেক ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তিনি জানান, দেশের সামাজিক-সাংস্কৃতিক পরিস্থিতি এমন যে, কারও মানসিক সমস্যাগুলোকে গুরুত্ব দেওয়া হয় না। তাই ক্রিকেটাররা এসব নিয়ে কথা বলতে রাজিও হয় না। মনের মাঝেই নিজের সমস্যাগুলোকে পুষে রাখে।