অনলাইনে টিসির আবেদন শুরু

২০২২ সালে দশম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত নিয়মিত-অনিয়মিত শিক্ষার্থীর বিদ্যালয় পরিবর্তন/ছাড়পত্র (টিসি) গ্রহণের জন্য অনলাইনে আবেদন শুরু করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। চলবে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। যেসব শিক্ষার্থী পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নিতে ফরম পূরণ করেনি, কেবল তারাই আবেদন করতে পারবে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক অধ্যাপক মোহাম্মদ আবুল মনছুর ভূঁঞার স্বাক্ষরিত আদেশ থেকে এ তথ্য জানা যায়।

যেভাবে আবেদন করতে হবে

১. প্রথমে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট dhakaeducationboard.gov.bd এ গিয়ে ই-টিসি (e-TC) বাটনে ক্লিক করে টিসি আবেদন ফরম পূরণ করে Submit your Application বাটনে ক্লিক করতে হবে। আবেদন সাবমিট হওয়ার পর শিক্ষার্থীর মোবাইল নম্বরে একটি গোপনীয় সিকিউরিটি কোডসহ এসএমএ যাবে। এই সিকিউরিটি কোড দিয়ে শিক্ষার্থী পরবর্তীতে তার আবেদনে প্রবেশ করতে পারবে।

২. শিক্ষার্থী অনলাইনে আবেদন সাবমিট করার পর যে সোনালী সেবা স্লিপ পাবে, সেটি প্রিন্ট করবে। পরবর্তীতে সোনালী ব্যাংকের যে কোনও অনলাইন শাখা থেকে সোনালী সেবার স্লিপের মাধ্যমে টিসি ফি ৭০০ টাকা জমা দেবে।

৩. শিক্ষার্থী সঠিকভাবে আবেদন সাবমিট করলে অধ্যয়নরত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অর্থাৎ প্রথম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একটি এসএমএস পাবে। তখন ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বোর্ডের ওয়েবসাইটে গিয়ে ওইএমএস-এর মাধ্যমে লগইন করে ট্রান্সফার সার্টিফিকেট অপশনে ক্লিক করলে টিসি আবেদন দেখতে পারবে। এরপর ওই প্রতিষ্ঠান আবেদনটি ফরওয়ার্ড অথবা রিজেক্ট করবে।

৪. প্রথম বিদ্যালয়/কলেজ আবেদনটি ফরওয়ার্ড করার পর টিসির জন্য আবেদন করা বিদ্যালয়/কলেজ অর্থাৎ দ্বিতীয় বিদ্যালয়/কলেজ একইভাবে ওইএমএম-এর মাধ্যমে লগইন করে করে ট্রান্সফার সার্টিফিকেট অপশনে ক্লিক করলে আবেদন দেখতে পারবে। এরপর ওই প্রতিষ্ঠান আবেদনটি ফরওয়ার্ড বা রিজেক্ট করবে।

৫. টিসির জন্য আবেদনকৃত বিদ্যালয়/কলেজ অর্থাৎ দ্বিতীয় বিদ্যালয়/কলেজ টিসি আবেদন ফরওয়ার্ড করলে শিক্ষার্থী একটি এসএমএস পাবে, তখন সে সোনালী সেবার মাধ্যমে টিসি ফি জমা দেবে। সোনালী সেবার স্লিপ বোর্ডে জমা দেওয়ার প্রয়োজন নেই। এটি শিক্ষার্থী সংরক্ষণ করবে।

৬. শিক্ষার্থী তার আবেদন কোথায় কোন অবস্থায় আছে জানার জন্য ঢাকা বোর্ডের ওয়েবসাইটে গিয়ে ই-টিসি বাটনে ক্লিক করে ট্রান্সফার সার্টিফিকেট স্ট্যাটাস এ গিয়ে তার আবেদনের অবস্থান জানতে পারবে।

৭. টিসির জন্য আবেদনকৃত বিদ্যালয়/কলেজ কর্তৃক আবেদন ফরওয়ার্ড এবং শিক্ষার্থী থেকে ফি জমা দেওয়ার পর বোর্ড থেকে টিসি আবেদন অনুমোদন বিবেচনা করা হবে। টিসি আবেদন অনুমোদন হলে শিক্ষার্থী একটি এসএমএ পাবে। তখন বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে এটি প্রিন্ট নিয়ে বদলি করা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে পারবে।

অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ছাড়পত্র

১. বোর্ড পরিবর্তন ও অষ্টম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের ছাড়পত্র দেওয়ার কার্যক্রমও চলবে। তবে বোর্ড পরিবর্তন ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ছাড়পত্রের আবেদন অনলাইনে সম্পন্ন হবে না। ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে সম্পন্ন হবে।

২. ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের আওতাধীন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীকে অন্য যে কোনো বোর্ডের আওতাধীন প্রতিষ্ঠানে যেতে হলে ঢাকা বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে টিসি ফরম ডাউনলোড করে সঠিকভাবে পূরণ করে উভয় বিদ্যালয়/কলেজ প্রধানের সুপারিশসহ ও ফরমের নির্দেশনা মোতাবেক ঢাকা বোর্ডে জমা দিয়ে একটি টিএন নম্বর সংগ্রহ করতে হবে।

৩. অন্য যে কোনও শিক্ষা বোর্ড থেকে আগত শিক্ষার্থীর একইভাবে ফরম পূরণ করে টিসির মাধ্যমে ভর্তিচ্ছু বিদ্যালয়/কলেজ প্রধানের সুপারিশ ও পূর্ববর্তী শিক্ষা বোর্ডের টিসির আদেশের কপিসহ ফরমের নির্দেশনা মোতাবেক ঢাকা বোর্ডে জমা করে একটি টিএন নম্বর সংগ্রহ করতে হবে।

৪. বোর্ড থেকে টিসি আবেদন অনুমোদনের পর অনুমোদনের কপি বোর্ডের ওয়েব সাইট প্রকাশ করা হবে dhakaeducationboard.gov.bd। শিক্ষার্থী বোর্ডের ওয়েব সাইটে গিয়ে স্কুল অর্ডার বাটনে ক্লিক করলে ট্রান্সফার সার্টিফিকেট টিএ অফিস আদেশ দেখতে পারবে ও টিএন অনুযায়ী প্রিন্ট দিয়ে বিদ্যালয়/কলেজে ভর্তি হতে পারবে।